রাজপথে ফিরলেন মান্না, বললেন, তাঁরা রাজনীতির ‘কিং’

প্রায় এক মাস পর রাজপথে ফিরলেন নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না।

সরকার পতনের দাবিতে বিএনপিসহ বিরোধীদের ডাকা অবরোধের সমর্থনে আজ রোববার দুপুরে রাজধানীতে গণতন্ত্র মঞ্চের মিছিলে মান্নাকে দেখা গেছে।

মিছিল শেষে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য দিয়েছেন মান্না। তিনি বলেছেন, তাঁরা দালাল না, রাজনীতির কিং।

আজ সকাল ছয়টা থেকে দেশব্যাপী আবার ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ কর্মসূচি শুরু করছে বিএনপি। আগামী মঙ্গলবার সকাল ৬টায় শেষ হবে এই কর্মসূচি। এ নিয়ে সাত দফা অবরোধ কর্মসূচি পালন করছে দলটি। বিএনপির সঙ্গে যুগপৎ আন্দোলনে থাকা আরও কয়েকটি রাজনৈতিক দল একই ধরনের কর্মসূচি পালন করে আসছে। সরকার পতনের দাবিতে বিএনপির সঙ্গে যুগপৎ আন্দোলনে থাকা গণতন্ত্র মঞ্চের অন্যতম শরিক দল নাগরিক ঐক্য।

গত ২৮ অক্টোবর ঢাকায় বিএনপির মহাসমাবেশ ঘিরে সংঘর্ষের পর থেকে মান্নাকে রাজনীতির মাঠে দেখা যাচ্ছিল না। প্রায় এক মাস ধরে তাঁকে রাজপথে দেখা না যাওয়া নিয়ে রাজনৈতিক অঙ্গনে নানা গুঞ্জন তৈরি হয়েছিল। তবে আজ তিনি রাজপথে ফিরলেন।

অবরোধের সমর্থনে আজ দুপুর পৌনে ১২টার দিকে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাব-সংলগ্ন মেট্রোরেল স্টেশন এলাকা থেকে গণতন্ত্র মঞ্চ মিছিল বের করে। এই মিছিলে অংশ নেন মান্না। মিছিলটি বিজয়নগর পানির ট্যাংক এলাকার কাছাকাছি গেলে তিনি সরে যান। এরপর তাঁকে আর মিছিলে দেখা যায়নি। তবে মিছিল শেষে প্রেসক্লাবের সামনে গণতন্ত্র মঞ্চের সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন তিনি।

সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে মান্না বলেন, ‘বেশ কিছুদিন আমি একটু অসুস্থ ছিলাম। এখনো আমি পুরো সুস্থ নই। আজকে এই সমাবেশে আসব, এ রকম সিদ্ধান্ত ছিল না। কিন্তু পরিস্থিতি আমাকে আসতে বাধ্য করল। পুরো এক মাস গণতন্ত্র মঞ্চ লাগাতার লড়াই করছে। মিটিং-মিছিলে বিরতি নেয়নি। নাগরিক ঐক্য এই আন্দোলনে আছে। কিন্তু হঠাৎ করে কেউ কেউ গণমাধ্যমে লিখলেন, মাহমুদুর রহমান কোথায়? হঠাৎ করে আমার জন্য এত দরদ!’

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আব্দুর রব অসুস্থ বলে উল্লেখ করেন মান্না। তিনি বলেন, আ স ম আব্দুর রব দেশের বাইরে চিকিৎসার জন্য গেছেন। তাঁর বিরুদ্ধেও লেখা হয়েছে যে তিনিও নির্বাচনে অংশ নিতে চান।

মান্না রহমান বলেন, ‘কারও নাম নিতে চাই না। আমরা রাজনীতির চামচিকা নই, আমরা রাজনীতির কিং।’

নাগরিক ঐক্যের সভাপতি বলেন, মাহমুদুর রহমান মান্না দালাল না। এখানে গণতন্ত্র মঞ্চের নেতারা দাঁড়িয়ে আছেন। তাঁদের দালালির অভিযোগে কেউ অভিযুক্ত করতে পারবে না।

‘নির্বাচন ঠেকে গেছে’ বলে মন্তব্য করেন মান্না। তিনি বলেন, ‘নির্বাচন কি হচ্ছে?’

বিএনপির নেতা-কর্মীদের ওপর নির্যাতন হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন মান্না। তিনি বলেন, চিল যেমন মুরগির বাচ্চা ধরে নিয়ে যায়, সে রকম এখন টপাটপ বিএনপির নেতা-কর্মীদের ধরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। বিচার করছে রাত–দিন মিলে। কারও নামে দুই বছর, কারও নামে আড়াই বছর, কারও নামে তিন বছর সাজার রায় দিয়ে দিচ্ছে। মামলা চালুই হয়নি, সাজা নির্ধারিত।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

আজকের দিন-তারিখ
  • বৃহস্পতিবার (ভোর ৫:৫৩)
  • ২০শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • ১৪ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি
  • ৬ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ (বর্ষাকাল)
Raytahost Facebook Sharing Powered By : Raytahost.com