ভুক্তভোগী থেকে যেভাবে প্রতারক হয়ে উঠলেন নজরুল

১১ বছর আগে সরকারি চাকরি পেতে ১১ লাখ টাকা দিয়ে প্রতারিত হন নজরুল ইসলাম (২৯)। এরপর আরও বেশ কয়েকবার সরকারি চাকরি পাওয়ার চেষ্টা করে প্রতারণার শিকার হন। প্রতারিত হয়ে লাখ লাখ টাকা খুইয়ে নিজেই শুধু করেন প্রতারণা। ভুয়া কাস্টমস অফিসার পরিচয়ে খুলে বসেন প্রতারকদের এক বিশাল চক্র। এরপর থেকে সরকারি চাকরি কিংবা কাস্টমসের আটকে থাকা মালামাল ছাড়িয়ে দেওয়ার কথা বলে হাতিয়ে নেন লাখ লাখ টাকা। নজরুলের নেতৃত্বে চক্রটি গত ২ বছর ধরে প্রতারণা করে ৪-৫ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

প্রতারক নজরুল ইসলামসহ তার আরও তিন সহযোগীকে আটকের পরদিন র‍্যাবের লিগ্যাল এন্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন এসব তথ্য জানান। বুধবার (১৬ আগস্ট) দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‍্যাবের মিডিয়া সেন্টারে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

এর আগে মঙ্গলবার (১৫ আগস্ট) দিনগত রাতে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকায় অভিযান চালিয়ে নজরুল ইসলাম (২৯) ও তার তিন সহযোগীকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব-১০)। গ্রেপ্তার তিন সহযোগী হলেন, ওয়ায়েশ করোনী ওরফে সেলিম (৪৭), নাসির উদ্দিন (২৬) ও সৈয়দ মো. এনায়েত (৪৮)।

গ্রেপ্তারের সময় তাদের কাছ থেকে প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত ১টি প্রাইভেটকার, ২টি মোটরসাইকেলসহ বিপুল পরিমাণ সরঞ্জামাদি জব্দ করা হয়

কমান্ডার খন্দকার আল মঈন বলেন, কয়েকজন ভুক্তভোগীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযান চালিয়ে এ প্রতারক চক্রের হোতা নজরুলসহ ৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। চক্রটি প্রায় ২ বছর ধরে এই প্রতারণা কার্যক্রম চালিয়ে আসছিল। তাদের মোট সদস্য সংখ্যা ৭-৮ জন। চক্রের অন্যান্য সদস্যরা বিভিন্ন এলাকার চাকরি প্রত্যাশীদের অর্থের বিনিময়ে চাকরি দেওয়ার কথা বলে নজরুলের কাছে নিয়ে আসত। নজরুল কাস্টমসের ইউনিফর্ম পরা অবস্থায় চাকরি প্রত্যাশীদের বলতেন, কাস্টমসসহ বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে তার সু-সম্পর্ক রয়েছে। এভাবেই চাকরি প্রত্যাশীদের বিশ্বাস অর্জন করে নগদ অর্থ হাতিয়ে নিতেন।র‍্যাবের মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক বলেন, এ চক্রটি গাড়িতে বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানের স্টিকার ব্যবহার করে ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জের স্থানীয় ব্যবসায়ীসহ ঢাকার বাইরে বিভিন্ন রিসোর্ট ও ব্যবসায়ীদের ভয় দেখিয়ে অর্থ হাতিয়ে নিত। এমনকি বিদেশে পাঠানোর কথা বলেও অসংখ্য ব্যক্তির কাছ থেকে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে চক্রটি।র‍্যাবের এ মুখপাত্র বলেন, নজরুল স্থানীয় একটি কলেজ থেকে ডিগ্রি পাস করে কাস্টমসে চাকরির জন্য আবেদন করে অনেক প্রতারককে বিভিন্ন সময় অর্থ প্রদান করে প্রতারিত হন। প্রথমে ২০১২ সালে কম্পিউটার অপারেটর হিসেবে চাকরি পেতে এক প্রতারককে ১১ লাখ টাকা দিলেও চাকরি পাননি। ২০১৩ সালে নৈশ প্রহরী ও ২০১৭ সালে উচ্চমান সহকারী হিসেবে চাকরি পাওয়ার আশায় পুনরায় আবেদন করে প্রতারিত হন। বিভিন্ন সময় কাস্টমসে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ ও কাস্টমসের বিভিন্ন কর্মকর্তাদের সান্নিধ্যে আসার সুবাধে কাস্টমসের বিভিন্ন কার্যক্রম সম্পর্কে তিনি ধারণা পান। এরপর নিজেই সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে অর্থ আত্মসাতের লোভে একটি প্রতারক চক্র গড়ে তোলেন।

তিনি বলেন, প্রতারণা করার জন্য নজরুল এলাকায় নিজেকে ঊর্ধ্বতন কাস্টমস অফিসার হিসেবে পরিচয় দিতেন। পরবর্তীতে কাস্টমসের পিওন, ঝাড়ুদার ও অন্যান্য পদে অস্থায়ী ভিত্তিতে ৪-৫ জনকে চাকরি প্রদান করে বিশ্বস্ততা অর্জন করে আরও অনেকের সঙ্গে প্রতারণা করেন। নজরুল চাকরির জন্য ২০-২৫ জনের কাছ থেকে টাকা নিতেন; দেখা যেন এর মধ্যে ২-১ জনের এমনিতেই চাকরি হয়ে যেত। তখন তার মাধ্যমে চাকরি হয়েছে বলে প্রচার করতেন। যাদের কাছ থেকে টাকা নিতেন তাদেরকে ভুয়া চেক ও স্ট্যাম্প দিতেন। পরে চাকরি না হলে আর টাকা ফেরত পেতেন না ভুক্তভোগীরা।

তিনি আরও বলেন, বিমানবন্দর ও স্থলবন্দরে দেশের বাইরে থেকে আসা স্বর্ণ ও মালামাল আটকে গেলে অর্থের বিনিময়ে ছাড়িয়ে দেওয়ার কথা বলেও টাকা হাতিয়ে নিতেন প্রতারক নজরুল। প্রতারণার মাধ্যমে আত্মসাৎকৃত অর্থ দিয়ে তিনি ফ্ল্যাট বুকিং, জমি ক্রয়, বাড়ি ও বিভিন্নভাবে তার নামে অর্থ সম্পদ গড়েন। প্রতারক নজরুল চক্র প্রায় দেড় কোটি টাকার বেশি হাতিয়ে নিয়েছেন এমন ১৭ জন ভুক্তভোগীর তথ্য পেয়েছে র‍্যাব। অন্যান্য ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে আরও প্রায় ৪-৫ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে চক্রটি।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

আজকের দিন-তারিখ
  • বুধবার (রাত ১:৩২)
  • ১৭ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • ৮ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি
  • ৪ঠা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ (গ্রীষ্মকাল)
Raytahost Facebook Sharing Powered By : Raytahost.com