ডেঙ্গু পরিস্থিতিকে ‘জরুরি পরিস্থিতি’ ঘোষণাসহ ৯ দাবি বাসদের

ডেঙ্গু মহামারি নিয়ন্ত্রণে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণসহ জনস্বাস্থ্য রক্ষায় ‘জরুরি পরিস্থিতি’ ঘোষণা করে ঢাকার প্রতিটি ওয়ার্ডে চিকিৎসাকেন্দ্র নির্মাণ, বিনামূল্যে ডেঙ্গু টেস্ট ও চিকিৎসা করা, নগরীর জলাবদ্ধতা দূর এবং দখল-দূষণ বন্ধে কার্যকর উদ্যোগ নেওয়ার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল বাসদ।

বুধবার (১৬ আগস্ট) বাসদের ঢাকা মহানগর শাখা ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন মেয়র বরাবর স্মারকলিপি দিয়ে এসব দাবি জানায়। এর আগে দলটি নগর ভবনের সামনে সমাবেশ করে।

স্মারকলিপিতে থাকা বাসদের দাবিগুলো হচ্ছে- ডেঙ্গু মহামারি পরিস্থিতিকে ‘জরুরি পরিস্থিতি’ ঘোষণা করা; বিনামূল্যে ডেঙ্গু পরীক্ষা ও চিকিৎসা করা, ঢাকার প্রতিটি ওয়ার্ডে অস্থায়ী ডেঙ্গু পরীক্ষা ও স্বাস্থ্যকেন্দ্র নির্মাণ করা; হাসপাতালগুলোতে আপদকালিন পর্যাপ্ত ডাক্তার-নার্সের ব্যবস্থা করা, সিট ও স্যালাইন সংকট নিরসনে কার্যকর উদ্যোগ নেওয়া; এডিস মশা ও ডেঙ্গু প্রতিরোধে কীটতত্ত্ববিদ, জনস্বাস্থ্যবীদ, স্থানীয় সরকারসহ সব অংশীজনের সমন্বয়ে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে সমন্বিত উদ্যোগ গ্রহণ ও জনসচেতনতা বৃদ্ধির কার্যক্রম জোরদার করা; জলাবদ্ধতা নিরসনে দখল করা সব খাল, পুকুর ও জলাশয় উদ্ধার এবং ওয়াসার সব পাম্প সচল করা।

এছাড়া অপরিকল্পিত নগরায়ণ বন্ধ করা, দখল-দূষণ রোধে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করা, খাস জমি উদ্ধার করা; মশা নিধন কার্যক্রম-সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের অনিয়ম, দুর্নীতি ও দায়িত্বে অবহেলার বিষয়গুলো তদন্ত করে সংশ্লিষ্টদের শাস্তির আওতায় আনা; দুই সিটি কর্পোরেশনকে জবাবদিহিতার আওতায় আনা; উপযুক্ত কীটনাশক ও এর চাহিদা নির্ধারণ করা, ক্রয়, কার্যকারিতা ও সহনশীলতা পরীক্ষার জন্য সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করে বিশেষজ্ঞ কারিগরি কমিটি করা, তাদের কার্যক্রম নিয়মিত হওয়াসহ সভাগুলোর কার্যবিবরণী প্রকাশ করা। অনিয়ম ও দুর্নীতি প্রতিরোধে কীটনাশক ক্রয় প্রক্রিয়ায় জাতীয় ক্রয় আইন ও বিধিমালা অনুসরণ করতে হবে এবং মশা নিয়ন্ত্রণে সমন্বিত কার্যক্রমের অংশ হিসেবে জনসম্পৃক্ততা নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্ট জনপ্রতিনিধির সমন্বয়ে এলাকাভিত্তিক স্বেচ্ছাসেবক দল গঠন করতে হবে এবং যথাযথ প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করতে হবে।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে- চলতি বছর দেশের ডেঙ্গু রোগীর অর্ধেকই ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনে। চলতি বছর ১৪ আগস্ট পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন ৮৭ হাজার ৮৯১ জন। এর মধ্যে রাজধানীর ৪৩ হাজার ৬৬৫ জন হাসপাতালে ভর্তি হন। এসময়ে দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ৪১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ৩০০ জনই ঢাকার বাসিন্দা। অর্থাৎ ডেঙ্গুতে যত মৃত্যু তার প্রায় ৭৬ শতাংশই ঢাকার। চলতি আগস্ট মাসকে ভাবা হচ্ছে ডেঙ্গুর পিক সিজনের সময়। তার ওপরে আবার গত দুই সপ্তাহ ধরে হয়ে যাওয়া বর্ষণ ও জলাবদ্ধতা ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব লাগামছাড়া করে ফেলছে। ইতোমধ্যে ডেঙ্গু আক্রমণে দেশে বেশ কয়েকজন ডাক্তার ও নার্স মারা গেছেন। কারণ ডেঙ্গু এখন সারাবছর ধরে হচ্ছে এবং বদলে যাচ্ছে মশার জীবনচক্র ও আচরণ।

তারা বলেন, ৪২টি খাল ও ৪টি নদী পরিবেষ্টিত ঢাকা মহানগর, অথচ সেই ঢাকা শহরের জলাবদ্ধতার সংকট এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে সামান্য বৃষ্টিতেই জলজট ও যানজটে নগরবাসী নাকাল। ঢাকার বেশীরভাগ খাল, পুকুর ও জলাশয় দখল হয়ে গেছে। দখল দূষণে ৪টি নদীর অবস্থা মৃতপ্রায়। ওয়াসার পাম্প স্টেশনগুলো নষ্ট, ফলে নদী, খাল, পুকুর ও জলাশয় থাকার পরও ঢাকার নিষ্কাশন ব্যবস্থার ভঙ্গুর দশা। এ দখল-দূষণ থেকে ঢাকা শহরকে রক্ষার কার্যকর উদ্যোগের ঘাটতি দৃশ্যমান। আবার বর্ষার মৌসুম এলেই সিটি কর্পোরেশনসহ বিভিন্ন বিভাগের খনন ও রাস্তা মেরামতের কাজ শুরু হয়, যা নগরবাসীকে আরও বেশি সংকটের মধ্যে ফেলে। আবার এ মেরামতকালীন সময় পানি জমে থাকা ও মশার উপদ্রব বাড়ার পেছনে অন্যতম কারণ এটি।

বাসদ ঢাকা মহানগর শাখার সদস্যসচিব জুলফিকার আলীর সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন বাসদ কেন্দ্রীয় সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য নিখিল দাস, বাসদ ঢাকা মহানগর নেতা খালেকুজ্জামান লিপন, ডেমরা-যাত্রাবাড়ী-শ্যামপুর শাখার নেতা জাকির হোসেন, আফজাল হোসেন, লালবাগ থানার নেতা রুখশানা আফরোজ আশা, শাহবাগ থানার নেতা আনোয়ারুল ইসলাম, খিলগাঁও থানা শাখার নেতা অনিক কুমার দাস, সূত্রাপুর থানার নেতা সুস্মিতা মরিয়ুম প্রমুখ।

পরে জুলফিকার আলী, জাকির হোসেনের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল মেয়র বরাবর স্মারকলিপি দেন।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

আজকের দিন-তারিখ
  • বুধবার (বিকাল ৪:০৭)
  • ১৭ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
  • ৮ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি
  • ৪ঠা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ (গ্রীষ্মকাল)
Raytahost Facebook Sharing Powered By : Raytahost.com