করোনা রোগীদের রাখা হোটেল ধস: উদ্ধার ৪৭, নিখোঁজ ২৩

করোনাভাইরাসে চীন জুড়ে অচলাবস্থা। ঠিক এ অবস্থাতেই ঘটলো বিপত্তি। দেশটির দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলীয় শহর কুয়ানজুতে রোগীদের জন্য কোয়ারেন্টাইনে রূপান্তর করা হয়েছিল একটি পাঁচতলা হোটেলকে। শনিবার ৭০ জনকে নিয়ে ধসে পড়ে ওই হোটেলটি। শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, ৮৭ জনকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। এখনও নিখোঁজ রয়েছেন ২৩ জন। তবে এখনও কোনো প্রাণহানির তথ্য জানায়নি কর্তৃপক্ষ।

স্থানীয় সময় শনিবার (৭ মার্চ) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা নাগাদ পাঁচতলা ভবনটি ধসে পড়ে।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, করোনা রোগীদের জন্য কোয়ারেন্টাইনে রূপান্তর করা হোটেলটি ধসের সময় এর ভেতরে অন্তত ৭০ জন লোক ছিলেন। ধসের ঘটনায় ভবনটির ভেতরে সবাই আটকা পড়েন। খবর পেয়ে দেড় শতাধিক উদ্ধারকর্মী ও ২৬টি ফায়ার ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে কাজ শুরু করে। রাতভর ভারী যন্ত্রপাতির মাধ্যমে উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করে আটকাপড়াদের মধ্যে ৪৭ জনকে উদ্ধার করেন তারা। এখনও অন্তত ২৩ জন নিখোঁজ রয়েছেন।

পাঁচতলা ভবনটি পুরোপুরি মাটিতে মিশে যাওয়ায় আটকাপড়াদের উদ্ধার কাজে উদ্ধারকর্মীদের বেশ বেগ পেতে হচ্ছে। তবে তারা উদ্ধার কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন।

২০১৮ সালের জুনে ৮০টি কক্ষ নিয়ে যাত্রা শুরু করে পাঁচতারকা হোটেলটি। গত জুনে চীনে করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর তা দ্রুত বিস্তার লাভ করলে রোগীদের চিকিৎসায় বিশেষায়িত হাসপাতাল নির্মাণ শুরু করে চীন সরকার। কিন্তু রোগীর তুলনায় হাসপাতাল সংকুলান হওয়ায় বিভিন্ন স্থাপনাকে হাসপাতালে রূপান্তর করে রোগীদের চিকিৎসা দেওয়া হয়।

কুয়ানজোতে শনিবার ধসে পড়া ভবনটি সেরকম একটি হাসপাতাল। যার দুইটি ফ্লোরে রোগীদের চিকিৎসাসেবা দেওয়া হচ্ছিলো।

এদিকে বিশ্বের ১০৩টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তিন হাজার ছয়শ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে তিন হাজার ৯৭ জন চীনে। আর বিশ্বব্যাপী ভাইরাসটিতে আক্রান্তের সংখ্যা এক লাখ পাঁচ হাজারের কাছাকাছি। মারা যাওয়ার সংখ্যায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ইতালি। দেশটিতে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত দুইশ ৩৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Raytahost Facebook Sharing Powered By : Raytahost.com