পাবনায় মেছো বাঘের কামড়ে চারজন আহত

পাবনার চাটমোহরে বিলুপ্ত প্রজাতির দুটি মেছো বাঘকে কবরস্থান থেকে আটক করেছে গ্রামবাসী। এ সময় চারজনকে কামড়ে দিয়েছে তারা। এতে রাগে একটি মেছো বাঘকে পিটিয়ে মেরেছে জনতা। জীবিত অন্যটিকে উদ্ধার করেছে বনবিভাগ। শুক্রবার (২ অক্টোবর) উপজেলার ডিবিগ্রাম ইউনিয়নের বামনগ্রামে এ ঘটনা।

মেছো বাঘের হামলায় আহতরা হলেন- বামনগ্রামের ইছা বিশ্বাসের ছেলে লিটন বিশ্বাস (৩৫), মৃত আব্দুল গফুরের ছেলে এনামুল হক (২৩), ইসমাইল হোসেনের ছেলে মহিদুল ইসলাম (২৮) ও আফসার আলীর ছেলে আনিছ (৩০)। তাদের হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।

পাবনার বন্যপ্রাণী বিষয়ক সংগঠন নেচার অ্যান্ড ওয়াইল্ড লাইফ কনজারভেশন কমিউনিটির সভাপতি এহসান আলী বিশ্বাস লিঠু জানান, গত এক সপ্তাহ ধরে বামনগ্রাম গোরস্থান এলাকায় দুটি মেছো বাঘ ঘোরাফেরা করতে দেখেন কেউ কেউ। এলাকায় এ নিয়ে নানা কেচ্ছা-কাহিনী রটে যায়। এরই মধ্যে কয়েকটি মুরগি ও একটি ছাগল ধরে খেয়ে ফেলে মেছো বাঘ।

স্থানীয়রা জানান, মুরগি ছাগল খাওয়ার পর মানুষের আতঙ্ক বেড়ে যায়। আতঙ্কিত গ্রামবাসী সবাই মিলে মেছো বাঘ ধরার প্রস্তুতি নেয়। শুক্রবার সকালে তারা একজোট হয়ে বামনগ্রাম গোরস্থান ঘিরে ফেলেন। তারপর বিভিন্ন কৌশলে মেছো বাঘ দুটিকে আটক করতে সক্ষম হন। এ সময় মেছো বাঘ দুটি ছাড়া পেতে কয়েকজনকে কামড়ে দেয়। এতে ক্ষুব্ধ জনতার পিটুনিতে একটি মেছো বাঘ মারা যায়।

খবর পেয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মেছো বাঘ দুটিকে ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে আসতে বলেন। পরে তারা জীবিত ও মৃত মেছো বাঘ দুটিকে ডিবিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ ভবনের সামনে নিয়ে যান। সেখানে উৎসুক জনতা ভিড় করেন।

ডিবিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ নবীর উদ্দিন মোল্লা জানান, বিষয়টি জানার সঙ্গে সঙ্গে মেছো বাঘ না মেরে উদ্ধার করে ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে আসার জন্য তিনি অনুরোধ করেন। এরই মধ্যে একটি মারা যায়। এছাড়াও এগুলোর আক্রমণে চারজন আহত হন।

চাটমোহর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈকত ইসলাম জানান, আহতদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি এড়াতে সমাজসেবা অফিসের মাধ্যমে ভ্যাকসিন দেয়া হয়েছে।

পাবনার বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে একটি জীবিত মেছোবাঘ উদ্ধার করেছি। অন্যটি মারা গেছে। উদ্ধারকৃত মেছো বাঘ কিছুটা আহত। তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেয়ার পর সুন্দর পরিবেশ দেখে অবমুক্ত করা হবে।

পাবনার বন্যপ্রাণী বিষয়ক সংগঠন নেচার অ্যান্ড ওয়াইল্ড লাইফ কনজারভেশন কমিউনিটির সভাপতি এহসান আলী বিশ্বাস লিঠু জানান, এটি মূলত বিপন্ন প্রজাতির মেছো বিড়াল বা বাঘরোল। কিন্তু অনেকেই এটিকে ‘মেছো বাঘ’ বলে ডাকেন। এরা নিরীহ প্রাণী। এরা মানুষের কোনো ক্ষতি করে না। ক্রমেই তাদের বসবাসের জায়গা কমে আসছে। এজন্য জন্য অনেক সময় লোকালয়ে তাদের দেখা যায়। জীববৈচিত্র রক্ষায় এসব প্রাণীর খুব প্রয়োজন

 

Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

Raytahost Facebook Sharing Powered By : Raytahost.com